Loading...

Back to Blog
  • Parenting
  • Lifestyle

City Alo Mother's Day Contest Winners 2019

A look at the winning essays from our Mother's Day Contest 2019!

  • Sheahan Nasir Bhuiyan
  • Sheahan Nasir Bhuiyan
  • 22 May 2019

City Alo Mother’s Day Contest Winners

City Alo are delighted to announce the winners of the City Alo Mother’s Day Contest 2019. On May 7th, we asked our followers on the official City Alo Facebook Page to submit a 250 words essay on why you believe your mother is the best in the world.

We are overwhelmed by the response and would like to thank everyone who participated in our contest. It was a heart-warming journey going through all your lovely write-ups, and it was extremely difficult to pick out the winners. After much deliberation, we have picked three stories which we felt truly captured our hearts.

Congratulations to the winners and thank you again to everyone who participated. Stay tuned for more contests in the future!

Please enjoy the winning essays below.

Kazi Wahida - 1st Prize Winner

Well, I am very proud of my mother the way she has raised me since childhood. Being a working lady, she always inspires me to be independent. My mom always appreciates me & encourages me to go for what I'm passionate about. My mom has made it possible for me to be who I am. A great quality of my mom is that she never forced me to do anything what I don't like. She helps me to take my decision by my own since school days ie. choosing my teacher, which course I will enroll etc. Now, this practice is helping me a lot in decision making at my workplace as well as at my home. As I have lost my father at the age of seven, my mother acted as both father & mother in case of responsibility & guidance. I am really lucky to get such a great mother who is quite different from ordinary mom in some cases. For example, my mom always respond to my opinion in childhood, she usually discussed with me about various issues happening in our life. That made me feel like I am an important person in my family since childhood & that automatically have produced the responsible character in me. I think this practice should be established in every family. My mom is so cool even she influenced me to attend a relative's wedding right before the day of my HSC examination! Weird right? It happened because she was confident that I had completed my syllabus; as I was very tensed, she thought I needed to relax my brain by going out! All guests were so shocked seeing me! Fortunately that didn't hamper my result! These kind of incidents happened with me many time! I enjoyed it a lot! The upbringing of my mother contributes a lot in my current independent nature. Now I am also a working lady like my mom, also continuing higher studies. I am really grateful to Almighty Allah for blessing me with the best mom of the world. May Allah bless my mom with good health & peace.

 

Shaila Parveen Shuma - 2nd Prize Winner

মা মানে চেনা গন্ধ

মা মানে নির্ভরতা, পরম মমতায় আগলে রাখা মমতাময়ী দুটি  হাত। 

মা ছাড়া আমার জীবনটা অচলই বলা যায়, তেমনি মা আমাকে ছাড়া অচল। ছেলেবেলায় চোখের একটু আড়াল হলে মা ডেকে ডেকে হয়রান হয়ে যেত়। আমি মায়ের মতোই ছিলাম একটু চোখের আড়াল হলেই মাকে ডেকে ডেকে হয়রান করে ফেলতাম। 

মায়ের হাত ধরেই আমার পদযাত্রা শুরু। সেই পদযাত্রা কখনো উঁচু, আবার কখনো নিচু, কখনো আলো আবার কখনো অন্ধকারময় ছিল। এই উঁচু-নিচু, আলো-অন্ধকারের সময়  মা সবসময় শক্ত হাত ধরে আমায় আগলে রেখেছেন। যেন কোথাও হোঁচট খেয়ে পড়ে না যাই 

অন্ধকারে শুধুমাত্র গায়ের গন্ধ দিয়ে আলাদা করে নিজের সন্তানকে চেনা যায় তা আমার জানা ছিল না। তথ্য আম্মার কাছ থেকে জানলাম। 

আমার বয়স তখন দশ বছরের মতো হবে। আশেপাশের সব বাচ্চারা একসাথে বড় একটা হলরুমে খেলা করছি। হঠাৎ করে বিদ্যুৎ চলে গেল। আমরা বাচ্চারা সব হৈ-হুল্লোড় করা শুরু করলাম। মায়েরা সবাই হলরুমের একপাশে বসা ছিল। অন্ধকারে সবাই নিজের মাকে খুঁজছি। দশ মিনিট পরে বিদ্যুৎ চলে এলো। আমার মাকে দেখি হলরুমের এক পাশে দাড়িয়ে আছে। জিজ্ঞেস করতেই বললো, তোমার বন্ধু অমিকে অন্ধকারে জড়িয়ে ধরেছিলাম।

তারপর?

তারপর কি আর! অমির গায়ের গন্ধ তো তোমার মতো না। পৃথিবীতে প্রতিটি মায়ের যেমন সন্তানের গন্ধ চেনা, তেমনি প্রত্যেকটা সন্তানেরও মায়ের গন্ধ চেনা। মনে আছে একবার খুব জ্বরে ভুগছিলাম। সারাদিন প্রলাপ বকি আর মাকে ডাকি। পৃথিবীতে এতো সম্পর্ক থাকতে অসুস্থ হয়ে শুধু মাকে ডাকি কেন? মায়ের সাথে যে আমাদের নাড়ির টান। যেন এক অদৃশ্য সুতোয় বাধা। 

মা আয়নার মতো আমার মুখ দেখলেই সব দেখতে পায়। আমি মায়ের দিকে তাকিয়ে থাকি, আয়নার মতো প্রতিচ্ছবি দেখা যায় নাকি!

পৃথিবীর সকল মায়েদের প্রতি অপরিসীম ভালোবাসা শ্রদ্ধা।

Shakura Jahan (Shammi) - 3rd Prize Winner

মা-বাবা আর আমরা দুই বোন, এই চারজনের সুখী পরিবার আমাদের।

অনেক বছর আগের কথা-

বাবা দেশের বাহিরে ইরাকে কাজ করতো। ইরাকে সমস্যা হওয়াতে বাবাকে হঠাৎ করেই দেশে ফিরে আসতে হল। তারপর জমানো যে টাকা ছিল সেটা দিয়ে বাবা একটা ট্রাক কিনলো। কিন্তু রমজান মাসে একটা Accident-এ বাবা'র একটি পা ভেঙ্গে যায় আর গাড়িটাও নষ্ট হয়ে যায়। গাড়িটি মেরামত করতে অনেক টাকার প্রয়োজন হয় তাই সেটা খুব কম দামে বিক্রি করে দিয়ে বাবার চিকিৎসা করা হয়। এদিকে ঈদ এসে গেল কিন্তু ঘরে কোন টাকা-পয়সা নেই। দুটি মেয়েকে ঈদে কিছুই কিনে দিতে না পারায় ২৭ রোজার দিন ইফতারের সময "মা" কান্নাকাটি করছিলেন। ঈদের আগের দিন সকালে ঘুম থেকে উঠে দেখি "মা" বাসায় নেই কোথায় যেন বাহিরে যান। তারপর বিকেলে যখন "মা" বাসায় আসেন তখন আমরা তো পুরাই অবাক হয়ে যাই। কারণ "মা" আমাদের সবার জন্য কাপড় কিনে বাসায় ফিরেন।

তখন বাবা "মা"কে জিজ্ঞাসা করলো, “এত টাকা পেলে কোথায়?”

মা অনেক নিচু স্বরে উত্তরে বললো, “আমার (মাএর) গলার স্বর্ণের লকেট টা বিক্রি করে দিয়েছি।

এটা শুনে বাবা "মা"কে জড়িয়ে ধরে কাদঁতে শুরু করে দেন। আমরাও মা-কে জড়িয়ে ধরে কান্না করতে থাকলাম।

সেই দিনটির কথা আমাদের সারাজীবন স্মরণীয় হয়ে থাকবে।

দুনিয়ার শ্রেষ্ঠ শব্দ "মা"। দুনিয়ার শ্রেষ্ঠ ভালবাসা শুধুমাত্র "মা"য়ের ভালবাসা।সন্তানদের জন্য যে কোন কিছুই ত্যাগ করতে "মা"য়েরা দ্বিধাবোধ করে না। অনেক কষ্ট করে "মা" আমাদেরকে মানুষ করেছেন।জীবন যুদ্ধে খুব সাহসী একজন যোদ্ধা আমার "মা"। ‘মা-এর ভালবাসা আর ত্যাগের বর্ণনা বলে শেষ করা যাবে না।

তোমায় অনেক অনেক ভালবাসি  "মা"

You are strongly recommended to peruse our Disclaimer and Privacy Policy and adhere to the Terms of Use of this website.